দক্ষিণ এশিয়ার সেরা দশ তরুণ নেতাদের তালিকায় মাশরাফি

By: সুখবর ডেস্ক ২০২১-০৩-১১ ৬:০৮:০৮ পিএম আপডেট: ২০২৪-০৩-০২ ৭:১১:০৯ এএম বাংলাদেশ
বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা, অন লাইন থেকে নেওয়া ছবি।

ইয়াং গ্লোবাল লিডার্সের মতে, দক্ষিণ এশিয়ার সেরা দশ ‘ইয়াং লিডার’র তালিকায় স্থান পেলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। 

 

২০০৫ সালে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা এবং নির্বাহী চেয়ারম্যান ক্লাউস সোয়াব গ্লোবাল লিডার্স ফোরাম প্রতিষ্ঠা করেন। বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে টেকসই ভবিষ্যত নির্মাণে অবদান রাখতে পারবেন এমন তরুণদের প্রতিবছর সম্মানিত করে থাকে এই প্রতিষ্ঠান ।  


২০২১ সালের তরুণ নেতাদের তালিকা প্রকাশ করতে গিয়ে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম জানায়, পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ৪০ বছরের কম বয়সী ১১২ জন তরুণ নেতাকে এ বছর নির্বাচিত করা হচ্ছে; যারা জনস্বাস্থ্য রক্ষা থেকে শুরু করে চিকিৎসা গবেষণার মত বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে অবদান রেখে চলেছেন। 

 

বর্তমানে ১২০টিরও বেশি দেশ থেকে ১,৪০০ সদস্য রয়েছে সংস্থাটির। সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন, কোস্টারিকার প্রেসিডেন্ট কার্লোস আলভারাডো ক্যু'সাদা, আইনজীবী আমাল ক্লুনি, চলচ্চিত্র নির্মাতা ভানুরি কাহিউ প্রমুখ। 


ইয়ং গ্লোবাল লিডার্স ফোরামের প্রধান মারিয়াহ লেভিন বলেন, ‘২০২১ সালের জন্য নির্বাচিত তরুণ নেতারা অত্যন্ত চিন্তাশীল এবং সাহসী। আমাদের বিশ্বাস তাদের সমন্বিত নেতৃত্বে মহামারী পরবর্তী একটি টেকসই ভবিষ্যত গড়ে উঠবে।’ 

 

এ বছর দক্ষিণ এশিয়া থেকে নির্বাচিত ১০ তরুণ নেতার মধ্যে মাশরাফি একজন। দক্ষিণ এশিয়ার বাকি নয়জনের মধ্যে ৭ জন ভারত এবং ১ জন করে পাকিস্তান ও নেপাল থেকে নির্বাচিত হয়েছেন।  

 

মাশরাফি শিক্ষা এবং গবেষণা শ্রেণিতে তালিকাভুক্ত হয়েছেন। ক্রিকেটারের পাশাপাশি সমাজসেবক হিসেবে তাকে তুলে ধরেছে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম। তারা বলছে, ক্রিকেটের পাশাপাশি নিজ জেলা নড়াইলের অগণিত মানুষকে দারিদ্র্যের ফাঁদ থেকে তুলে আনতে সহায়তা করেছেন মাশরাফি। জেলার নাগরিকদের আধুনিক সুযোগ-সুবিধা প্রদান ও বিশেষায়িত শিক্ষা পদ্ধতি, নৈতিকতা ও মানবিকতার প্রশিক্ষণ, চাকরির সুযোগ তৈরি, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম বাড়ানো, ক্রীড়া প্রশিক্ষণ সরবরাহ, চিত্রা নদীর পাড়ে পর্যটন হাব তৈরি, নড়াইলকে তথ্য-যোগাযোগ প্রযুক্তিতে রূপান্তরিতকরণের পাশাপাশি পরিবেশবান্ধব শহরে পরিণত করার লক্ষ্যে গড়ে তুলেছেন নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন।

 

তার সাথে এ তালিকায় আরো স্থান পেয়েছেন যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডের প্রভাষক দেবী শ্রীধর, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্বতন্ত্র সাংবাদিক আদ্রিয়ানা কারগিল এবং মালয়েশিয়ার আসিয়ান পোস্টের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও রোহান রামকৃষ্ণান । 

 

এছাড়া নাগরিক সমাজ এবং সামাজিক উদ্যোক্তা শ্রেণিতে স্থান পেয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। তিনি তার প্রতিষ্ঠিত 'লিভ লাভ লাফ ফাউন্ডেশনের' জন্য নির্বাচিত হন।  

 

সূত্রঃ দ্য ইকোনমিক টাইমস